রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন




ব্যাপক সংঘর্ষে উত্তাল কাশ্মীর; শীর্ষ কমান্ডার নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশ: বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

ফের সংঘর্ষে উত্তাল হয়ে পড়েছে ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর। এদিকে, জঙ্গি দমন অভিযানে ফের বড়সড় সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। ব্যাপক সংঘর্ষের পর জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তৈয়বার শীর্ষ কমান্ডার আসিফ। ঘটনাস্থল থেকে বহু অস্ত্র ও নথি উদ্ধার হয়েছে বলে জানা গেছে।

ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গেছে, বুধবার কাশ্মীরের সোপোরে আসিফের লুকিয়ে থাকার খবর জানতে পারে সেনাবাহিনী। সেইমতো দ্রুত ছকে ফেলা হয় অভিযানের নকশা। ওই জঙ্গি নেতার ডেরা ঘিরে ফেলে সেনা ও পুলিশের যৌথবাহিনী। নিরাপত্তারক্ষীদের উপস্থিতির কথা জানতে পেরে গুলি চালাতে শুরু করে আসিফ। তবে শেষরক্ষা হয়নি। বেশ কিছুক্ষণ লড়াইয়ের পর সেনার গুলিতে নিহত হন পাকিস্তানের মদতপুষ্ট ওই জঙ্গিনেতা।

অভিযোগ, উপত্যকায় একাধিক নাশকতা ও খুনের নেপথ্যে ছিলেন আসিফ। বহুদন ধরেই এই মোস্ট ওয়ানন্টেড জঙ্গিকে আটকের চেষ্টা চলছিল। অবশেষে তা সফল হয়।

সম্প্রতি কাশ্মীরে লস্কর-ই-তৈয়বার আট জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপোর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের সন্ত্রাসদমন শাখা। বেশ কিছুদিন ধরে ওই এলাকায় তারা গা ঢাকা দিয়েছিল বলে অভিযোগ। কেউ যাতে তাদের ব্যাপারে মুখ না খোলে সেজন্য স্থানীয় বাসিন্দাদের ভয় দেখানো এবং প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিল তারা।

গ্রেপ্তার হওয়া ওই আট জঙ্গি হলেন, এজাজ মির, ওমর মির, তৌসিফ নজর, ইমতিয়াজ নজর, ওমর আকবর, ফয়জান লতিফ, দানিশ হাবিব এবং শওকত আহমেদ মীর। তবে এরা সকলেই কাশ্মীরের অধিবাসী নয়। এদের মধ্যে কারা পাকিস্তানের বাসিন্দা তা চিহ্নিত করতে তাদের জেরা করা হচ্ছে।
এদিকে, ধর্মীয় হিংসা যাতে না ছড়ায় সেজন্য উপত্যকায় কোথাও মঙ্গলবার মহররমের তাজিয়া ও শোভাযাত্রা বের করতে দেয়নি পুলিশ। এর মধ্যেই আগাম খবরের ভিত্তিতে রুটিনমাফিক জঙ্গি দমন অভিযান চালায় পুলিশ।

image_pdfimage_print




সংবাদটি ভাল লাগলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ




© All rights reserved © 2019 notunbarta24.com
Developed by notunbarta24.Com
themebazarnotunbar8765