বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
বাগেরহাটে ওয়ার্কিং কমিটির মৎস্য প্রক্রিয়াজাত কারখানা পরিদর্শণ হাজারো বেকারের কর্মসংস্থান তৈরীর লক্ষ্যে কাজ করছেন তারা বাগেরহাটে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের কর্মবিরতি বাগেরহাটে পরিবার পরিকল্পনা সেবার মান উন্নয়নে ওয়ার্কিং কমিটির সভা রামপালে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বসতবাড়িতে ঢুকে গাছপালা কর্তনের অভিযোগ বা‌গেরহা‌টে কনসালটেশন ওয়ার্কশপ অনু‌ষ্ঠিত বাগেরহাটে আন্তর্জাতিক মাদক বিরোধী দিবস পালিত বাগেরহাটে মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রদান কর্মসূচির উপকারভোগীদের প্রশিক্ষন শুরু দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের দাত ভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে – শেখ তন্ময় এমপি চিতলমারীতে বিক্ষোভকারীদের ইটের আঘাতে কৃষকলীগ নেতা আহত




পাবনায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

পাবনা প্রতিনিধি
  • প্রকাশ: রবিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৯

পাবনার সুজানগর উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এই ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে সুজানগর থানায় মামলা করেছেন। ঘটনার পর অভিযুক্ত পলাতক।

নির্যাতনের শিকার শিশুটির পরিবার ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে বাড়ির পাশে একটি বাগানে প্রতিবেশি জয়দেব কুমার দাস (৪০) ওই শিশুটিকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে এবং মেয়েটিকে এ কথা কাউকে না বলার জন্য ভয়ভীতি দেখিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়।

এরপর শিশুটির প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে দেখে মা তাকে জিজ্ঞাসা করলে মেয়েটি ঘটনা খুলে বলে। মেয়েটির বাবা ঘটনাটি স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের কাছে জানালে তিনি মীমাংসার কথা বলে করেননি।

একপর্যায়ে ঘটনাটি জানাজানি হলে শনিবার সুজানগর থানার এসআই অর্জুন সাহা ঘটনাস্থলে তদন্তে এসে অভিযুক্ত জয়দেব কুমার দাসকে আটক করেন।

এ সময় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিন উদ্দিন ও সাবেক ইউপি সদস্য ইমরুল হোসেন সামাজিকভাবে সমঝোতার কথা বলে অভিযুক্তকে পুলিশের কাছ থেকে ছাড়িয়ে নেন।

ঘটনার বিষয়ে শিশুটির মা বলেন, ‘আমরা গরীব মানুষ, আমার মেয়ের ভবিষ্যৎ কি হবে। আমার শিশু মেয়ের সাথে যে এই জঘন্য কাজ করেছে আমি তার কঠিন বিচার চাই।’

এ বিষয়ে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিন উদ্দিন বলেন, বিষয়টি আমি সামাজিকভাবে বসে ঠিক করার কথা বলে ছিলাম। পরে সমাধান করতে পারবো না বলে জানিয়েছি ওই পরিবারকে। মেয়েটির বাবা আমার কাছে এসেছিলো আমি তাকে আইনগত ব্যবস্থার গ্রহণের কথা বলেছি।

তিনি বলেন, ঘটনার পরে পুলিশ তদন্তে এসেছিলো। তখন অভিযুক্ত ব্যক্তি ঘটনাস্থলে পুলিশের সঙ্গে উপস্থিত ছিল। শিশুটির পরিবার তখন পুলিশের কাছে কোন অভিযোগ করেনি। সেই কারণে পুলিশ তাকে ছেড়ে দেয়। আমি কোনও ধরনের তদবির করিনি।

পাবনা সুজানগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘প্রাথমিক পর্যায়ে শিশুটির পরিবার বিষয়টি থানাকে জানাতে চায়নি। আমরা তার পরিবার ও শিশুটির সঙ্গে কথা বলেছি। তার বাবা বাদী হয়ে থানাতে ধর্ষণের চেষ্টার মামলা করেছে। ধর্ষককে গ্রেফতারের জন্য চেষ্টা করছি।’

এ ব্যাপারে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বস বলেন, ‘এই বিষয়ে একটি অভিযোগের কথা শুনেছি। সংশ্লিষ্ট থানাকে বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখার জন্য বলেছি। ধর্ষক সে যেই হোক তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

image_pdfimage_print




সংবাদটি ভাল লাগলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো সংবাদ










© All rights reserved © 2019 notunbarta24.com
Developed by notunbarta24.Com
themebazarnotunbar8765