মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
বাগেরহাটে আন্তর্জাতিক মাদক বিরোধী দিবস পালিত বাগেরহাটে মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রদান কর্মসূচির উপকারভোগীদের প্রশিক্ষন শুরু দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের দাত ভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে – শেখ তন্ময় এমপি চিতলমারীতে বিক্ষোভকারীদের ইটের আঘাতে কৃষকলীগ নেতা আহত বা‌গেরহা‌টে জেলা প্রশাস‌নের সা‌থে সরকারী বিদ‌্যাল‌য়ের অ‌ভিভাবক‌দের মত‌বি‌নিময় বাগেরহাট সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক পরিষদের কমিটি গঠন বাগেরহাটে পরিবার পরিকল্পনা সেবার মান উন্নয়নে ওয়ার্কিং কমিটির সভা বাগেরহাটে মহানবী (সাঃ)কে কটুক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভ ব্ল্যাকমেইল করে দেড় মাস ধর্ষণ, অভিযুক্তকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করল দশম শ্রেণির ছাত্রী! নবী মোহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটূক্তি করায় বিজেপি নেতা গ্রেপ্তার




সুন্দরবনে ৭ জেলেকে অপহরণ, মুক্তিপণ দাবি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
  • প্রকাশ: বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

মুক্তিপণের দাবিতে সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জে মাছ শিকারে যাওয়া সাত জেলেকে মুক্তিপণের দাবিতে অপহরণ করেছে বনদস্যুরা।

জানা গেছে, এসব বনদস্যু আমিনুর বাহিনী সদস্য। ১০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুরের দিকে পশ্চিম সুন্দরবনের দোঁবেকী মনসা ভেটীপাড়া খাল এবং ৮ ও ৯ সেপ্টেম্বর কোবাদক এলাকা থেকে এসব জেলেদের অপহরণ করা হয়।

জিম্মি জেলেদের পরিবারসহ অপরাপর জেলেদের কাছে ‘টাকা দিয়ে বনে নামার’বার্তা পৌঁছে দিতে দুই জেলেকে বাড়ি ফেরার সুযোগ দেয় হয়। তবে তাদেরকেও বেধড়ক মারপিট করা হয়।

অপহৃত জেলেরা হলেন, শ্যামনগর উপজেলার নীলডুমুর গ্রামের সজল (১৯), চাঁদনীমুখা গ্রামের রাজু, কয়রা উপজেলার আংটিহারা জোড়শিং গ্রামের আনারুল ইসলাম (৩২), কয়রা গ্রামের হেলাল উদ্দীন (৪২)। বুড়িগোয়ালিনী গ্রামের সুজাত গাজীর ছেলে নাসির হোসেন (৩০), পাশের্মারী গ্রামের কাশেম শেখের ছেলে শাহ আলম ও তার এক আপন চাচাত ভাই।

জিম্মি  হওয়া জেলেদের নিকটাত্মীয় এবং নৌকা মালিক হাবিবুল্লাহসহ সুন্দরবন থেকে ফিরে আসা জেলেরা আমিনুর বাহিনীর হাতে এসব জেলেদের অপহরণের ঘটনা নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে সোমবার বুড়িগোয়ালিনী স্টেশন থেকে পাশ নিয়ে সুন্দরবনে যাওয়ার পথে মঙ্গলবার দুপুরে আমিনুর বাহিনীর পরিচয়ে সজলসহ চার জনকে জিম্মি করা হয়। এর আগে কোবাদক স্টেশন থেকে পাশ নিয়ে সুন্দরবনে মাছ শিকারকালে ৮ সেপ্টেম্বর জিয়া বাহিনী পাশের্মারীর শাহ আলম ও তার চাচাত ভাইকে তুলে নেয়। প্রায় একই এলাকা থেকে ৯ সেপ্টেম্বর নাসিরকে জিম্মি করে আমিনুর বাহিনী। তবে নাসিরের দুই সহযোগীকে বেধড়ক মারপিট করে মুক্তিপণের টাকা সংগ্রহ ও প্রেরণের জন্য বাড়ি ফেরার সুযোগ দেয় বনদস্যুরা।

ফিরে আসা জেলেদের পাশাপাশি অপহরণের শিকার ব্যক্তিদের পরিবারের দাবি, আমিনুর বাহিনীর প্রধান আমিনুর ২০১৬ সালে বরিশালে র‌্যাব-৮ অধীনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে অস্ত্র জমা দিয়ে আত্মসমর্পণ করে। তবে গত কয়েক মাস ধরে আমিনুর আরও ছয় সহযোগীকে নিয়ে সুন্দরবনে অপতৎপরতা শুরু করেছে। সে আত্মসমর্পণকারী হিসেবে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও গোপনে সুন্দরবনে সক্রিয় রয়েছে।

শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল হুদা বলেন, ‘জেলে অপহরণের বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

পশ্চিম সুন্দরবনের সহকারি বন সংরক্ষক (এসিএফ) রফিক আহম্মেদ জেলেদের অপহরণের বিষয়টি লোক মারাফত শুনেছেন বলে জানিয়েছেন।

image_pdfimage_print




সংবাদটি ভাল লাগলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো সংবাদ










© All rights reserved © 2019 notunbarta24.com
Developed by notunbarta24.Com
themebazarnotunbar8765