শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১০:০০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
বাগেরহাটে এমপি শেখ তন্ময় উদ্যোগে সেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ কচুয়ায় যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে হামলা-ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ লুটপাট, অন্ত:স্বত্তা নারীসহ আহত-৪ পবিত্র লাইলাতুল কদর আজ : ফজিলত ও আমল বাগেরহাটে টিকটকে আপত্তিকর ছবি পোস্ট করায় কলেজ ছাত্রীকে হত্যা করে স্বামীর আত্মসমর্পণ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয়বার শপথ নিলেন মমতা বাগেরহাটে আওয়ামী লীগ নেতা আসাদ শেখের হত্যাকারীদের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন আশুলিয়ায় শ্রমিকনেতা সারোয়ারের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ শিল্প কারখানা কর্তৃপক্ষ বাগেরহাটের নিউ বসুন্ধরার চেয়ারম্যানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ বাগেরহাটে উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী হামলা : দুই বৃদ্ধা নারীসহ আহত-৩ বাগেরহাটে কর্মহীন বিশেষ পেশাজীবীদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ




বাগেরহাটের নিউ বসুন্ধরার চেয়ারম্যানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

নতুন বার্তা ডেস্ক
  • প্রকাশ: রবিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২১
বাগেরহাটের নিউ বসুন্ধরার প্রধান কার্যালয়

র্নীতি দমন কমিশনের অর্থ পাচার মামলায় নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট লিমিটেডের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানের জামিন স্থগিত করে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছে আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতিসহ ছয় বিচারপতির আপিল বেঞ্চ রোববার এই আদেশ দেয়।

আদালতে দুদকের আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। তিনি বলেন, ‘দুদকের করা ১১০ কোটি টাকা পাচারের মামলায় নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেটের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানকে হাইকোর্ট জামিন দিয়েছিল।

‘আমরা তার বিরুদ্ধে আপিলে গিয়েছি। আপিল বিভাগ তার জামিন স্থগিত করে দুই সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণ করতে বলেছে। আর লিভ পিটিশনের শুনানি হবে আগামী ২৭ মে।’

গত বছরের ৮ অক্টোবর হাইকোর্ট তাকে জামিন দিয়েছিল।

মামলার বিবরণে বলা হয়, ২০১০ সালে বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী ছিলেন আবদুল মান্নান তালুকদার। পরে তিনি স্বেচ্ছায় অবসর নিয়ে নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট লিমিটেড নামে একটি জমি কেনাবেচার প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। ওই প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হন নিজে। আর প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান করেন শহরের মিঠাপুকুরপাড় জামে মসজিদের ইমাম আনিসুর রহমানকে।

প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহকদের প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় ১১০ কোটি ৩১ লাখ ৯ হাজার ১৩৫ টাকা সংগ্রহ করে। টাকাগুলো প্রথমে বাগেরহাটের ১৬টি ব্যাংকের ৩০টি হিসাবে রাখা হয়। পরে সেখান থেকে ওই টাকা তুলে পাচার করা হয়েছে বলে দুদকের অভিযোগে বলা হয়েছে।

এই টাকা কোথায় পাচার করা হয়েছে তা জানতে দুদক অনুসন্ধানে নামে। এ ঘটনায় ২০১৮ সালের ৩০ মে বাগেরহাট শহরের আবদুল মান্নান তালুকদার ও আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে দুদক মানি লন্ডারিং আইনে একটি মামলা করে।

এ মামলায় ২০১৯ সালে আনিসুর রহমানকে কারাগারে পাঠান বাগেরহাটের মুখ্য বিচারিক হাকিম। এরপর তিনি হাইকোর্ট থেকে ২০২০ সালের ৮ অক্টোবর জামিন নিয়ে বের হয়ে যান।

image_pdfimage_print




সংবাদটি ভাল লাগলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ










© All rights reserved © 2019 notunbarta24.com
Developed by notunbarta24.Com
themebazarnotunbar8765